শালিখ

কাজের ফাঁকে হঠাৎ সেদিন গভীর স্বরে শালিখ পাখি বলে গেলো প্রাচীন সে সব অনেক কথা, বাইরে তখন ঘুড়ির টানে আকাশ জুড়ে দুপুর ওড়ে রোদের সাথে হা- হা দুপুর পুরনো ঐ ছাদের কোণে শালিখ তখন বলছিল এই কার্নিশেতে ঝুলতে থাকা শুকিয়ে যাওয়া শ্যাওলামাখা আবছা কিছু শব্দ ভরা তোমার মতন প্রাচীন কথা ...

Read More »

কথা দিলাম- নাসির আহমেদ কাবুল

একটি ফুল দেবে? একটি গোলাপ রক্তলাল টকটকে— ভোরের শিশিরে চুমোর দাগ গোলাপের শরীরে, দেবে? আমি তোমায় বিশ্বাস দেবো হাত ধরে থাকার প্রতিশ্রুতি দেবো পাশাপাশি হাঁটার অঙ্গীকার দেবো দেবে, লাল টকটকে একটি গোলাপ? না হয় নাইবা দিলে— গোলাপের চেয়ে আরও ভালো, যদি ঠোঁট দুটি দাও, যদি করতলের জোছনা এনে দুই চোখে ...

Read More »

খেলবো হোলি রং লাগাবো লক্ষ্মণ ভাণ্ডারী

আগামীকাল দোলপূর্ণিমা। কবিতা ককটেল ব্লগের সাথে সংযুক্ত সকল লেখক কবিগণকে জানাই শুভ দোল পূর্ণিমার অগ্রিম প্রীতিঘন শুভেচ্ছা। দোল পূর্ণিমায় বসন্ত উত্সব জাতীয় জীবনে সর্বাঙ্গীন। শিশু-বৃদ্ধ-যুবা সকলেই জাতিধর্মনির্বিশেষে তাই এই উত্সবে মেতে ওঠে। পুরাকাল থেকে আমাদের দেশে মহাসমারোহে পালন হওয়া এই দিনটি নিয়ে উত্সাশহের অন্ত নেই। তবে গোটা দেশের থেকে দোল ...

Read More »

প্রদীপখানি – শিবাশিস্ দাস

প্রদীপটা এখনও জ্বলছে…. চারিপার্শ্বের নীরবতাকে, সামান্য স্পর্শ করে জ্বলছে নিজের বুক পুড়িয়ে; হুহু করা ঠান্ডা বাতাসে লাপ-ডাপ করা হৃদয়ের ছন্দে জ্বলছে এখনও…. সলতে হয়ে গেছে ছোটো, ফুরিয়ে যাচ্ছে তেল; প্রাণশক্তিটুকু রয়েছে বেঁচে পোড়া সলতের টুকরো খসে পড়ছে জীবন সলতে থেকে— জমে যাচ্ছে বোঝা, নেই কোনো সমঝোতা, আছে শুধু না পাওয়ার ...

Read More »

দৃষ্টিকোণ – শিবাশিস্ দাস

রঙভরা বাঁশির সুর আবির রাঙা শ্বেতপাথর তাজমহল, আর— সাদাকালো রঙমশাল। পথজোড়া ধ্বংসস্তূপ, বড়শী আর ল্যাম্পপোষ্ট ডাকপিওনের ঝুলিভরা, অনাহুত দৃষ্টিকোণ। ফুটপাত, কফিশপ, চায়ের ভাঁড়ের পোড়া দাগ প্রতিটি চুমুক থেকে পড়ছে ঝড়ে উষ্ণ আঁচ। সোনাভরা ভিক্ষাঝুলি, সিন্দুক আধার কুটকচালি দক্ষিণপাড়ার পথের মোড়ে ফটক ভাঙা সিংহাসন। ঈশান কোণের ন’মামার বাদ পড়ল সম্ভাষণ নাম ...

Read More »

একদিন আমি আকাশ হবো

একদিন আমি আকাশ হবো। বিশাল ব্যপ্ত আসমানী নীল পরত পরত – গভীর থেকে গভীরতর চুঁইয়ে পড়ে কালোর ভেতর শূন্যতাকে ছুয়ে নেবো, একদিন আমি আকাশ হবো, রং আর শব্দ পরিব্যাপ্ত সব মেঘেদের পেরিয়ে যাবো। একদিন আমি আকাশ হবো।

Read More »

পৃথিবীতে “নারীর আলো” জ্বালাতে চাই- ইকরামুল শামীম

আমি অবলা নষ্ট পুরুষের বাহুতে দুর্বল, আমি উচ্ছিষ্ট আমি ধর্ষিত পুরুষের হিংস্র থাবায়, আমি নারী পুরুষের অর্ধাঙ্গিনী আমি মমতাময়ী তবুও পুরুষের শেকলে বন্দি, আমি নারী একটু আদর আর ভালবাসায় হই ভরপুর, সাজাই স্বপ্নের নীড় হারিয়ে যাই সংসার নামক কর্তব্যে তবুও পুরুষের নাক ছিটানী আমি অবলা। পুরুষ অপূর্ণ আমি নারী ছাড়া ...

Read More »

তোমাকে নিয়ে জিততে চেয়েছিলাম- নিখর তাবিক

আমি তাকে নিয়ে জিততে চেয়েছি, আর সে শুধু বাচতে চেয়েছে। অনেকেই তাকে বয়ুভর্তী ব্যাগ নিয়ে বাচাতে এসেছিল,জেতাতে পারেনি। আমি তাকে জেতাতে পেরেছিলাম, বাঁচাতে পারিনি। আমিও উন্মুখ হয়ে বসে ছিলাম জিতে যাবার জন্য, কিন্তু- সে আমার বাচাঁতে পেরেছে জেতাতে পারেনি।

Read More »

এখানে অনেক লোকের ভীড়

এখানে অনেক লোকের ভীড়, বিশাল আয়োজন; তারই মাঝখানে দাঁড়িয়ে তোমায় খুঁজি- হয়ে অন্যমন।। বেলা বয়ে যায়, সময় হয়না ফিরে তাকাবার ; এখানে ভক্তেরা তোমায় আগলে রাখে বারবার।। দূর থেকে ভেসে আসে সেই চেনা গন্ধ ; মনে পড়ে, তুমি আর আমি দরজা জানালা বন্ধ ।। ঐ এক নাম শুধু তোমারই, বাজে ...

Read More »

নিতম্ব-তরুন ইউসুফ

গোল্ডলিফের নিতম্বে আরামসে একটা দম দিয়ে লম্বা ধোঁয়া ছাড়তে ছাড়তে আয়েশি ভঙ্গিতে দাঁড়িয়ে ছিল মাহমুদ হোসেন। অফিসে ঢোকার প্রাক্কালে এই নির্দিষ্ট জায়গাটিতে দাঁড়ানো রোজকার অভ্যাসে পরিনত হয়েছে তার। জায়গাটি অফিস থেকে একটু দূরে চার রাস্তার সংযোগস্থল। প্রতিদিন সকালের এই সময়টিতে এই রাস্তা দিয়ে অসংখ্য মানুষের যাতায়াত সংঘটিত হয়। কত কিসিমের ...

Read More »

তোমার গন্তব্যহীণ পথে- নিখর তাবিক

গন্তব্যহীন পথে অথবা বুনো দ্বৈরথে অপ্রাপ্ত মৃত্যু বেদনা তোমার। প্রচন্ড একক বর্বরতায়ও অতৃপ্ত অথবা ক্ষনিক তৃপ্ত তুমি। তোমার গন্তব্যহীন পথে, মুগ্ধতার রথে সহজেই নেমে আসে পোশাকী বালক পোশাক ফেলে। বিবস্ত্র কল্পনাতে ধরা দেয় শত নিষ্পাপ দীর্ঘাকায় শেতাঙ্গ। সহজেই কেও ঢুকে পরে মিলন ঘরে, তুমি সহজেই হারাতে পারো যে কেউ অথবা ...

Read More »

তোমার হাতের সাগর খানা

পান্না কিংবা আতরদানি, স্ফটিক পাত্র কিংবা কানের মুক্তোকণা– ভাঙলে পরে ভেঙেই থাকে চোখের জল কি জুড়তে পারে ? ভাঙলে পরে ? কেন কুড়াও টুকরোগুলো? জমিয়ে রাখ কেনই বা আর ব্যাগের ফাঁকে ? কেউ কখনো পারবে না কি জুড়তে আবার ? আগের মতো ? কার ওপরে ভরসা রাখো ? তোমার হাতের ...

Read More »