এই সময়ের কবিতা

কালো অ্যাম্বাসাডর – নীরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী

কালো অ্যাম্বাসাডরের প্রসঙ্গ উঠতেই তাঁর কথা
অকস্মাৎ ঘুরে যায়
খুন, দাঙ্গা, রাহাজানি ইত্যাদির দিকে।
অতঃপরRead More »কালো অ্যাম্বাসাডর – নীরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী

ডাক – শ্রীজাত

ভাষা আমার শরীর। যেমন আকাশ মাটি জলও –
তারও আছে শিকড়, তুমি ফুলের কথাই বলো।

‘অ’ বললে তাই অহং বুঝি, ‘আ’ বললে তাই আদর
আমার ভাষায় বসত করে অজস্র বেরাদর।Read More »ডাক – শ্রীজাত

গাছ – শ্রীজাত

মৃত্যু সেজে দাঁড়িয়ে আছে মুখনিচু এক গুরুত্বহীন গাছ
হাত রাখো তার বুকের কাছে, দেখতে পাবে আলো-গহীন গাছ।

ঘোড়ারা সব মৃত এখন, প্রান্তরে এক চাঁদ দাঁড়িয়ে চুপ…
আমার মতো একলা ঘরে কেউ বুঝি আর শোনে মহীন, গাছ?Read More »গাছ – শ্রীজাত

জন্মদিনের ফুল – শ্রীজাত

কখনও লাস্য, কখনও লড়াই তুমি।
ভেঙেছিলে মিথ, মিথ্যের কারিগরি
অক্ষর স্থায়ী। কলমেরা মরসুমি।
আমরা এখনও তোমারই কবিতা পড়ি।Read More »জন্মদিনের ফুল – শ্রীজাত

ঈশ্বর – শ্রীজাত

তোমাকে ঈশ্বর মেনে আমার হয়েছে যত জ্বালা।
যক্ষ হয়ে ঘুরে মরছি একই মহল্লায় সারারাত
জেগেছে সরাইখানা, দূরে দূরে ম্লান পান্থশালা…
প্রতিটি অক্ষর আজও জাতিস্মর কিতাবে মলাট।Read More »ঈশ্বর – শ্রীজাত

অন্ধকারের গান – শ্রীজাত

এই যুদ্ধের দিনগুলো পেরিয়ে যেতে
তুমি বন্ধুর মতো কিছু সাহস দিও
ওই সঞ্চয় ফলে আছে সময়ক্ষেতে
সেই শস্যের রং আজও অতুলনীয়Read More »অন্ধকারের গান – শ্রীজাত

আমি আমার কোনো খুনিকেই ক্ষমা করিনি – আখতারুজ্জামান আজাদ

তোমরা কি দেখোনি কীভাবে আমি আমার খুনিদের বিচার করেছি?
তোমরা কি জানো না আমার সংবিধানে আটচল্লিশ আছে,পঞ্চাশ আছে,উনপঞ্চাশতম অনুচ্ছেদ নেই?
তোমরা দেখোনি,তোমরা জানো না।Read More »আমি আমার কোনো খুনিকেই ক্ষমা করিনি – আখতারুজ্জামান আজাদ

চা-পানের ইতিবৃত্ত – আখতারুজ্জামান আজাদ

মুখতার, চা দাও এক কাপ!

প্রিয় দেশবাসী,
আজ এই টিএসসির খোলা চত্বরে দাঁড়িয়ে ধূমায়মান চায়ের কাপ হাতে নিয়ে,
আপনাদেরকে আমি আমার লাগামহীন চা-পানের ইতিবৃত্ত বর্ণনা করব।Read More »চা-পানের ইতিবৃত্ত – আখতারুজ্জামান আজাদ

এই যে তুমি মস্ত মুমিন মুসলমানের ছেলে – আখতারুজ্জামান আজাদ

এই যে তুমি মস্ত মুমিন, মুসলমানের ছেলে;
বক্ষ ভাসাও, ফিলিস্তিনে খুনের খবর পেলে।
রোহিঙ্গাদের দুঃখে তুমি এমন কাঁদা কাঁদো;
ভাসাও পুরো আকাশ-পাতাল, ভাসাও তুমি চাঁদও!
অশ্রু তোমার তৈরি থাকে— স্বচ্ছ এবং তাজা;
হ্যাশের পরে লিখছ তুমি— বাঁচাও, বাঁচাও গাজা।Read More »এই যে তুমি মস্ত মুমিন মুসলমানের ছেলে – আখতারুজ্জামান আজাদ

একটি অসাধারণ কবিতা – নবারুণ ভট্টাচার্য

আমার ভালোবাসায় যে নিজেকে উৎসর্গ করেছিল
সেই মেয়েটি এখন আত্মহত্যা করছে।
নীল ও বিন্দু বিন্দু আমার কপালে ঘাম
তার কাছে আমি গভীর সার্থকতা ছিলামRead More »একটি অসাধারণ কবিতা – নবারুণ ভট্টাচার্য

আকাশে ওড়ার স্বপ্ন ছিল যে মেয়েটার – প্রদীপ বালা

আকাশ দেখার স্বপ্ন ছিল মেয়েটার
ছোট থেকেই আকাশে পাখি হয়ে ওড়ার
সাধ ছিল তার
মফঃস্বল থেকে শহরে এলো যেদিন
জীবনে প্রথমবার কলেজ ক্যাম্পাসের
সোনালী রোদ গায়ে এসে পড়েছিল
সে বুঝতে পারল আকাশের অনেক কাছাকাছি আছেRead More »আকাশে ওড়ার স্বপ্ন ছিল যে মেয়েটার – প্রদীপ বালা

একটা রক্তকরবী ফুটবে বলে – প্রদীপ বালা

একটা রক্ত করবী ফুটবে বলে
                                দাঁড়িয়ে আছি
ঋতু আসে ঋতু যায়
ভীড় ঠেলা ট্রাম ব্যস্ত মানুষ
সব পেরিয়ে দাঁড়িয়ে আছি
ঝুপ করে ফের সন্ধ্যা নামে
ক্লান্ত পাখির ডানার ঝাঁপটা
শুনতে শুনতে দাঁড়িয়ে আছি
এই শহরে আবারও ফের
বসন্তেরই অপেক্ষাতে
                                দাঁড়িয়ে আছিRead More »একটা রক্তকরবী ফুটবে বলে – প্রদীপ বালা

ছেলেটা – শক্তি চট্টোপাধ্যায়

ছেলেটা খুব ভুল করেছে শক্ত পাথর ভেঙে
মানুষ ছিলো নরম, কেটে, ছড়িয়ে দিলে পারতো ।
অন্ধ ছেলে, বন্ধ ছেলে, জীবন আছে জানলায়
পাথর কেটে পথ বানানো , তাই হয়েছে ব্যর্থ ।Read More »ছেলেটা – শক্তি চট্টোপাধ্যায়

দলিত – সুপ্রতীম সিংহ রায়

বাতাসে ভাসে উচ্চবর্ণ হাওয়া
উঠোন জুড়ে সংখ্যালঘু ফুল,
এক দেশে,এক সুরে গান গাওয়া
“নীচ তুমি”-এটাই তোমার ভুল।

ছড়িয়ে পড়ছে ধর্ম ধর্ম গন্ধ
বর্ণভেদে ভাঙছে একটা সমাজ,Read More »দলিত – সুপ্রতীম সিংহ রায়

একটি লাল রঙের ওড়না – প্রদীপ বালা

ভোর হলেই বাইশ বছরের বে-রোজগার
ছেলেটির হাত ধরে যে মেয়েটি
বাড়ি ছাড়বে বলে জেগে বসে আছে
তার প্রিয় ওড়নার রঙ লালRead More »একটি লাল রঙের ওড়না – প্রদীপ বালা

হে রাষ্ট্রযন্ত্র শুনতে পাচ্ছ? – প্রদীপ বালা

(ছত্তিশগড়ে মাওবাদী সন্দেহে পুলিশের ভুয়ো এনকাউন্টারে মৃত ১৯ বছরের বিবেক কোডামাগুন্ডলা – ১৫ই জুন ২০১৫ খবরে প্রকাশিত)

বৃষ্টি পড়ছে
ঝুম বৃষ্টি পড়ছে

হারান মন্ডলের চোখে ঘুম নেই
হারান মন্ডল ধানক্ষেতের আলে দাঁড়িয়ে থাকে
যুবতী ধানক্ষেত, গা বেয়ে গড়িয়ে পড়া জল
হারান মন্ডলের চোখে ঘুম নেইRead More »হে রাষ্ট্রযন্ত্র শুনতে পাচ্ছ? – প্রদীপ বালা

গ্রেনেড – প্রদীপ বালা

পড়ন্ত বিকেলে যাদের পেচ্ছাব হলুদ হয়ে আসে
আর রাত নামলে ফুটপাতে ত্রিফলার আলোয়
শুয়ে শুয়ে উঁচু উঁচু ইমারতের ইট খাওয়ার স্বপ্ন দ্যাখে
ওই দ্যাখো, দেখতে পাচ্ছ
আকাশের গায়ে তাঁদের মুষ্টিবদ্ধ হাত
হাতে হাতে সূর্যের গ্রেনেড
Read More »গ্রেনেড – প্রদীপ বালা

অ-শেষ – সৃজা ঘোষ

বিকেলের রোদে লাভ নেই খুব আর।
রক্ত জমে না কাঁচা আলোটুকু পেলে,
জীবন জানেনা- ‘সন্ত্রাস কবেকার?’
কতগুলো মাটি জন্ম দিত না ঢেলে… !
Read More »অ-শেষ – সৃজা ঘোষ

আমরা – সৃজা ঘোষ

এখান থেকে মাইল খানেক, বইছে জীবন ওতপ্রত-
ভেতর ভেতর সবাই একা, রক্ত সাজায় নিজের মত…
‘সহিষ্ণুতা’-য় ভয় করে যার, সভ্যতা তো তাকেই জেতায়।
নষ্ট হবার বীজ পুঁতেছে শহর আমার, অন্য কেতায়Read More »আমরা – সৃজা ঘোষ

কনসেন্ট্রেশন ক্যাম্প – রুদ্র মুহান্মদ শহীদুল্লাহ

তাঁর চোখ বাঁধা হলো।
বুটের প্রথম লাথি রক্তাক্ত
করলো তার মুখ।

থ্যাতলানো ঠোঁটজোড়া লালা –
রক্তে একাকার হলো,
জিভ নাড়তেই দুটো ভাঙা দাঁত
ঝরে পড়লো কংক্রিটে।Read More »কনসেন্ট্রেশন ক্যাম্প – রুদ্র মুহান্মদ শহীদুল্লাহ

জনতার মুখে ফোটে বিদ্যুৎবাণী – সুকান্ত ভট্টাচার্য

কত যুগ, কত বর্ষান্তের শেষে
জনতার মুখে ফোটে বিদ্যুৎবাণী;
আকাশে মেঘের তাড়াহুড়ো দিকে দিকে
বজ্রের কানাকানি।
সহসা ঘুমের তল্লাট ছেড়ে
শান্তি পালাল আজ।
দিন ও রাত্রি হল অস্থির
কাজ, আর শুধু কাজ! Read More »জনতার মুখে ফোটে বিদ্যুৎবাণী – সুকান্ত ভট্টাচার্য

উত্তরাধিকার – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়

নবীন কিশোর, তোমায় দিলাম ভূবনডাঙার মেঘলা আকাশ
তোমাকে দিলাম বোতামবিহীন ছেঁড়া শার্ট আর
ফুসফুস-ভরা হাসি
দুপুর রৌদ্রে পায়ে পায়ে ঘোরা, রাত্রির মাঠে চিৎ হ’য়ে শুয়ে থাকা
এসব এখন তোমারই, তোমার হাত ভ’রে নাও আমার অবেলা
আমার দুঃখবিহীন দুঃখ ক্রোধ শিহরণ Read More »উত্তরাধিকার – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়