আজ  ​​​​ নলিন-নয়ান মলিন কেন বলো সখী বলো বলো!

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ পড়ল মনে কোন্ পথিকের বিদায়-চাওয়া ছলছল?

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ বলো সখী বলো বলো!!

 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ মেঘের পানে চেয়ে চেয়ে বুক ভিজালে চোখের জলে,​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ওই সুদূরের পথ বেয়ে কি চেনা-পথিক গেছে চলে

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ফিরে আবার আসব বলে গো?

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ স্বর শুনে কার চমকে ওঠ (আহা),

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ওগো ওযে বিহগ-বেহাগ,​​ নির্ঝরিণীর কলকল।

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ও নয় গো তার পায়ের ভাষা (আহা)

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ শীতের শেষের শুকনো পাতার ঝরে পড়ার বিদায়-ধ্বনি ও;

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ কোন্ কালোরে কোন্ ভালোরে

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ বাসলে ভালো (আহা)

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ পরদেশি কোন্ শ্যামল বঁধুর শুনচ বাঁশি সারাক্ষণই গো?​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ চুমচো কারে?​​ ও নয় তোমার পথিক-বধুঁর চপল হাসি হা-হা, ​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ তরুণ ঝাউয়ের কচি পাতায় করুণ অরুণ কিরণ ও যে (আ-হা)!

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ দূরের পথিক ফিরে নাকো আর (আহা আ-হা)

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ও সে সবুজ দেশের অবুঝ পাখি ​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ কখন এসে যাচবে বাঁধন,​​ চলো সখী ঘরকে চলো!​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ও কী?​​ চোখে নামল কেন মেঘের ছায়া ঢল ঢল॥

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।