আত্মদান – উত্তম চক্রবর্তী

একটি ছেলে জন্মেছিলো
বাংলার মায়ের বুকে,
ধন্য মাতার ধন্য ছেলে
জন্মভূমির সুখে।

জ্ঞানে গুণে লেখাপড়ায়
অনেক সুনাম ছিলো,
বিদ্যালয়ে সবার অতি
প্রিয়ভাজন হলো।

ছোটবেলায় স্বপ্ন দেখে
ধরবে দেশের হাল,
স্বপ্ন যে তার সত্যি হলো
নেতা মহাকাল।

সুখেদুঃখে ছুটে যেতো
সবার আশেপাশে,
উদারচিত্ত দেখে লোকে
ভীষণ ভালোবাসে।

শত্রু মুক্ত করে গেলো
চিরদিনের তরে,
বেঁচে থাকার শক্তি দিলো
সারাজীবন ভরে।

জন্ম তাহার ধন্য হলো
সোনার দেশের তরে,
জীবন দিয়ে রেখে গেলো
দেশকে স্বাধীন করে।

তাং – ১৫/০৮/১৮

উত্তম চক্রবর্তী
সৎ ও সত্যে বিশ্বাসী তিনি। তিনি মনে করেন লেখালেখি সৌখিন মনের পরিচায়ক। প্রতিটি মানুষ তার ব্যক্তিসত্তার আড়ালে কোন না কোন সুপ্ত প্রতিভা লুকিয়ে রাখে। লেখক ও তার ব্যতিক্রম নয় বলে তিনি মনে করেন। কবিতা ককটেলের লেখকদের লেখা পড়ে অনুপ্রাণিত হয়ে নিজে ও টুকিটাকি লেখার চেষ্টায় নিযুক্ত হয়েছেন। অনেক অনেক ধন্যবাদ জানাই কবিতা ককটেলকে এত সুন্দর প্রয়াসের জন্য।