আগষ্ট এসেছে – কবি মকিজ রেজা

0
44

একটি গোলাপ রোজ ফোটে অভিমানে
একটি বুলেট রোজ ফাটে আশেপাশে
একাটা দুঃখ কুড়েখায় আমাকে প্রতিদিন
একটা পাখি পাখাটা ঝাপটায় মরে সকাল সাঝে
আমি বুঝতে পারি আজ আগষ্ট এসেছে!!!

সিড়িতে আঁকা রক্তের কিসের যেন ছবি
আকাশে জমে আছে কালমেঘের কিছু স্মৃতি
নদীতে আজ বইছে পাগলা তমুল স্রোত
শকুনের মুখে দেখি আজ একখন্ড মাংশ
আমি বুঝতে পারি আজ আগষ্ট এসেছে

কারও চোখে কান্নার জল ঝরে অনাবরত
কারও ঘর বাড়ি পুড়ে গেছে হিংসার আগুনে
কারও মনের আকাশে আজ রক্ত ঝরে
কারও মনে এক চিলতে শান্তি নেই আজ
আমি বুঝতেই পারি আজ শোকের
নীল উৎসবে আগষ্ট এসেছে!!!

যখন আমি লিখতে বসি টেবিলে রক্ত দেখি
যখন যা লিখি,দেখি রক্তের কালি
যখন জানালা খুলি একটা পাখির বুক থেকে রক্ত ঝরে
খাতার পাতা জুড়ে ছড়িয়ে আছে রক্তের ছবি
চারিদিকে আওয়াজ শুনি,আজ আগষ্ট এসেছে

আমার মৃত্যুর পরেও আসবো আগষ্ট
শুধু দুঃখ রয়ে যাবে সেই সুনীল পাখি আসবেনা কোনদিন
যে রোজ এসে আমার জানালায় স্বাধীনাতার গান গাইতো
সেই পাখির শিস শুনবোনা, যার ডাকে আমার ঘুম ভাঙতো
চারিদিকে দেখি শোকের জোয়ার,আমি বুঝতে পারি আজ পনেরোই আগষ্ট!!!

চারিদিকে যখন বৃষ্টির শুরু হল রাতে
বৃষ্টি কোথায় এদেখি রক্ত ঝরে
একটি গোলাপের বাগানে
ফুটান্ত গোলাপ ঝরে ঝরে পড়ে
চারিদিকে ঝিরিঝিরি রক্তের উৎসব
আমি বুঝতে পারি আগস্ট এসেছে

কেউ কেউ অমনবিক হাসে
কেউ কেউ উৎসবে কাটে কেক,
কারও আজ জন্মদিন
আমি বুঝতে পারি পনেরোই আগস্ট!
আজ ঝরবো আশ্রুধারা এই শ্রাবনে,

যাদের রক্তের স্রোতে ভেসেছিল
পঁচাত্তরের একটি রাত বৃষ্টি নেমে
ছিলে
বৃষ্টি কোথায় রক্ত ঝরেছিলে সেদিন
কিছু রক্ত চোয়ার টেবিলো
কিছু রক্ত সিড়িতে
কিছু রক্ত বারান্দায়
একজন মহান প্রেমিক সিঁড়ির উপরে, ঘুমিয়ে ছিলে শুয়ে, আর,
ভাঙা চশমাটা লেগেছিলো রক্তের দাগ
কত যন্ত্রনায় নুইয়ে পড়া শরীল
আর, কোনদিন তার গাইতো হবেনা গান আর কোনদিন তার জেল খাটতে হবে না
শুধু তাই’ না, তার পরিবারে আঠারো টা জীবন ঝরে গেল,
একবারে নিরবে
বেঁচে গেল দু’ টি কন্য বিদেশ থাকার কারনে
তাদের মুখের পাণে তাকিয়েই আমি বুঝতে পারি আজ আগষ্ট এসেছে!!!
সেই নির্বাক চোখে আবাক হয়ে তাকাবে না, কোনদিন
গাইবেনা মুক্তির গান
তাহার শুন্যতায় মনে করিয়ে দেয় বারে বারে আগষ্ট এসেছে,
আর আমরা কাতর পনেরোই আগষ্টের সেই শোকে!!!