শুরু করিলাম লয়ে নাম আল্লার,
কৃপা করুণার যিনি অপার পাথার।

বিদ্যুৎ-গতি দীর্ঘশ্বসা

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ (বীরবাহী উটের শপথ),

যাহার চরণ-আঘাত উগারে

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ তপ্ত বহ্নি ফিনকিবৎ।

প্রত্যুষে করে ধূলি উৎক্ষেপি

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ (শত্রু-শিবির) আক্রমণ,

অনন্তর সে (অরি) দলে পশে

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ (এই হেন করে বিলুন্ঠন)।

শপথ তাদের – নিঃসংশয়

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ অকৃতজ্ঞ মানবকুল

তাদের পালনকর্তা প্রভুর

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ পরে,​​ নিশ্চয়, (নহে সে ভুল!)

আর সে নিজেই সাক্ষী ইহার

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ কঠিন বিষয়াসক্তি তার,

সে কি তা জানে না,​​ কবর হইতে

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ উঠানো হইবে সবে আবার?

হৃদয় তাদের লুকানো যা-কিছু

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ প্রকাশ করাব সব সেদিন,

জানিবে তাদের (সকল গোপন)

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ কথা – ‘রাব্বুল আলামিন’ ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।