ছড়া

এই যে তুমি মস্ত মুমিন মুসলমানের ছেলে – আখতারুজ্জামান আজাদ

এই যে তুমি মস্ত মুমিন, মুসলমানের ছেলে;
বক্ষ ভাসাও, ফিলিস্তিনে খুনের খবর পেলে।
রোহিঙ্গাদের দুঃখে তুমি এমন কাঁদা কাঁদো;
ভাসাও পুরো আকাশ-পাতাল, ভাসাও তুমি চাঁদও!
অশ্রু তোমার তৈরি থাকে— স্বচ্ছ এবং তাজা;
হ্যাশের পরে লিখছ তুমি— বাঁচাও, বাঁচাও গাজা।Read More »এই যে তুমি মস্ত মুমিন মুসলমানের ছেলে – আখতারুজ্জামান আজাদ

অতীতের ছবি – সুকুমার রায়

পর্ব ১

ছিল এ ভারতে এমন দিন
মানুষের মন ছিল স্বাধীন ;
সহজ উদার সরল প্রাণে
বিস্ময়ে চাহিত জগত পানে।
আকাশে তখন তারকা চলে,Read More »অতীতের ছবি – সুকুমার রায়

Pages: 1 2 3 4 5 6

খাঁটিকথা – অমিয় আদক

জায়গাটা খাগড়া, ভূতেদের আখড়া।
সেখানে হয়না ভাই ভূতেদের ঝগড়া।
যেই গেছি আখড়ায়, আমাকেই পাকড়ায়
ভূতের চৌকিদার, সে কেবল দাবড়ায়।
আমি তো পাইনি ভয়, ভয়কে করেছি জয়।Read More »খাঁটিকথা – অমিয় আদক

এলোমেলো ছড়া – অমিয় আদক

হাতে কাগজের তাড়া, তাতেই আছে ছড়া।
দেখেই তোমার চোখ দু’খানি হল ছানা বড়া?
ভুতের মাসি ভুতের পিসি ভুতের বেন্দাবন,
আমার হাতের ছড়ার তাড়া আমার বড় ধন।
পেত্নি মাসি আসে, বসে মাঠের ঘাসেRead More »এলোমেলো ছড়া – অমিয় আদক

আষাঢ়ে ছড়া – অমিয় আদক

মিতুল ডাকে পুতুলদিকে শোনাতে তার ছড়া,
এই ছড়াটা সবার কাছে যাবে না যে পড়া।
আষাঢ় মাসে রাজস্থানে হল বিরাট বান,
চিতোর গড়ের মানুষরা সব হাবুডুবু খান।
কাশ্মীরেতে বালির পাহাড়, নেই তো বরফ মোটে,
ডাল হ্রদেতে উটের দৌড় দেখে সময় কাটে।Read More »আষাঢ়ে ছড়া – অমিয় আদক

আজকের অপুরা – অমিয় আদক

তেলচিটে আকাশের বেড়া ভেঙে
আলোর গোল্লা খানা ওঠে নামে।
দিন শুরু, শেষ হয় দিন।
নীলচে কালচে হয়ে ফুটে ওঠে আকাশে,
অপুদের স্বপ্ন হয়ে গেছে ফ্যাকাসে।
আকাশের নীল রঙ কবে গেছে হারিয়ে,
অপুদের স্বপ্ন কবে গেছে ফুরিয়ে।Read More »আজকের অপুরা – অমিয় আদক

অনলাইনে পূজো – অমিয় আদক

বলছি আমি দুগ্‌গা ঠাকুর, মনটি দিয়ে শোন,
আমায় দেখতে না পেয়ে সব, ভয় পেওনা যেন।
এবার পুজোয় সপরিবার, মর্তে যাবই না,
বিষ ভরপুর হাই-ব্রিডেরই ফল তো খাবই না।
গণেশ আমার বড়ই পেটুক, সেও যেতে নয় রাজী।Read More »অনলাইনে পূজো – অমিয় আদক

আড়ি – সুকুমার রায়

কিসে কিসে ভাব নেই ? ভক্ষক ও ভক্ষ্যে-
বাঘে ছাগে মিল হলে আর নেই রক্ষে ।
শেয়ালের সাড়া পেলে কুকুরেরা তৈরি,
সাপে আর নেউলে ত চিরকাল বৈরী !Read More »আড়ি – সুকুমার রায়

ষোল আনাই মিছে – সুকুমার রায়

বিদ্যে বোঝাই বাবুমশাই চড়ি সখের বোটে,
মাঝিরে কন, ”বলতে পারিস সূর্যি কেন ওঠে?
চাঁদটা কেন বাড়ে কমে? জোয়ার কেন আসে?”
বৃদ্ধ মাঝি অবাক হয়ে ফ্যালফ্যালিয়ে হাসে।
বাবু বলেন, ”সারা জীবন মরলিরে তুই খাটি,
জ্ঞান বিনা তোর জীবনটা যে চারি আনাই মাটি।”Read More »ষোল আনাই মিছে – সুকুমার রায়

ন্যাড়া বেলতলায় যায় ক’বার – সুকুমার রায়

রোদে রাঙা ইঁটের পাঁজা, তার উপরে বসল রাজা-
ঠোঙাভরা বাদাম ভাজা খাচ্ছে কিন্তু গিলছে না।
গায়ে আঁটা গরম জামা, পুড়ে পিঠ হচ্ছে ঝামা;
রাজা বলে, “বৃষ্টি নামা- নইলে কিচ্ছু মিলছে না”।
থাকে সারা দুপুর ধ’রে, ব’সে ব’সে চুপটি করে,
হাঁড়িপানা মুখটি ক’রে আঁকড়ে ধরে শ্লেটটুকু;
ঘেমে ঘেমে উঠছে ভিজে, ভ্যাবাচ্যাকা একলা নিজে,
হিজিবিজি লিখ্ছে কি যে বুঝ্ছে না কেউ একটুকু।
Read More »ন্যাড়া বেলতলায় যায় ক’বার – সুকুমার রায়