ফিরে এল ব্যথা— অপর্ণা বসু

সেদিন দুপুরে একটা কাজে বেরিয়েছিলাম ফুটপাথ ধরে হাঁটতে হাঁটতে পেছন থেকে দেখে চমকে উঠলাম মাথাটা ঠিক তেমনি সামান্য ঝুঁকিয়ে রেখেছে বোধহয় স্পন্ডিলাইটিস ব্যাকব্রাশ করা সাদা চুল সযত্নে আঁচড়ানো চেক বুশ শার্ট আর পরিপাটী কালো ট্রাউজার্স দু হাত দুপাশে হাঁটার তালে দুলছে ধীরে ধীরে তিনি হেঁটে যাচ্ছেন সেই পরিচিত ভঙ্গী আমি ...

Read More »

সত্য – মোঃ সাইফুল ইসলাম (অনিক)

সত্য, তুমি বড়-ই মহান ৷ নেই তোমার কোন পিছুটান ৷ তুমি বীর-তুমি সম্মান, বাড়াও বাহকের ৷ সত্য তুমি’যে দাও বাতলে, পথ মোরে হকের ৷ সত্য তোমাকে বড় ভালবাসি, নিন্দুক চোখে তাই আমি দোষী, ব্যঙ্গ করিয়া বলে তাহারা, কর সাধুতার ভান ? তবুও সত্য আমার কাছে, তুমি যে মহান ৷ সত্য ...

Read More »

প্রথম প্রেম – কবি মোহাম্মদ মকিজুর রহমান

যে দিন তোমার আমার দেখা হল তারপর আর হল না তুমি আমাকে অবঙ্গা করেছিলে অনর্থক আমার আকাঙ্ক্ষণীয় মৃত্যু হয়েছিলে। দীক্ষাগুরু শিষ্যের সিদ্ধাধি গণনা করে বলেছিল তুই কাঁদবি অকৃতকার্য তুই বড়ই সরল চোখের জলে ভিজাবি কপাল অকারণে। ছলশুন্য কম্পনশুন্য ছিলে সব অকৌশল হল প্রণয় নিষ্টুর নির্দয় জ্যোৎস্না ও নির্মল নদী অশুভ ...

Read More »

ছড়া – মোহাম্মদ মকিজুর রহমান

ধোনচে গাছে নুপুর বাজে আমার গাঁয়ের পথে, টুনটুনিরা ফুলের বনে নাচে তালে তালে। সাঁঝের বেলা জোনাক জ্বলে ডালিম গাছের তলে, চাঁদের আলো দপদপিয়ে পৃথিবীতে আসে। আকাশ জুড়ে তারার হাসি নীল জ্যোৎস্নার খেলা, সাদা মেঘের ভেলায় ভেসে দেখি পরির মেলা। এক একা রাত্রি জেগে ছন্দ ছড়া লিখি, সকাল বেলা পাখির ডাকে ...

Read More »

সন্ধ্যার কবিতা – মোঃ মুসা ইসলাম

মোঃ মুসা ইসলাম ১ম। • গোধূলি নীল বর্ন বেকে দুয়ারে, • একটু পরে সন্ধ্যা নামবে ক্ষানিক ক্ষন পরে। • পশু পাখি হাল ছেড়ে গলা টানা দেওয়ার ছুটেছে ধীরে রাত্রি যাপনে যার যার প্রান্ত যার। • কৃষক নাঙল কাঁদে লয়ে ধরছে বাড়ি পথ ফেরার। • তেজি সূর্য রক্তিম লালে যাবে যাবে ...

Read More »

ক্ষুধা বোধি ও তেপায়া – পর্ণব দাস

ক্ষুধা বোধি ও তেপায়া ক. মূর্তিটি অসমাপ্ত রেখে ভাস্কর অপ্রকট হলেন। নিজেকে প্রকাশ করবে ভেবে মূর্তি যেই একহাতে তুলেছে হাতুড়ি ছেনি ধরতে গিয়ে দেখে অন্যহাতে করতল নেই।। খ. কেন্দ্র আর পরিধির মাঝামাঝি দাঁড়িয়ে রয়েছি। ক্ষেত্র অপরিসর ভেবে বিন্দুতে ঝাাঁপ দেব যেই সাঁই বলে, ‘পরিধিলগ্ন হয়ে দেহশুদ্ধ ভেসে র’বে অথৈ সাগরে’। ...

Read More »

জীবন – অপর্ণা

ইষ্টিশনের নাক বরাবর যে রাস্তাটা সোজা ফেরিঘাটে নেমে গেছে সেই রাস্তার ধারেই কেওড়াপাড়া ওখানেই ও থাকে রাস্তার ধারের বড় বাড়িগুলোর পেছনে খাপরার চাল সারি সারি ঘর গুলো দালান গুলর পিছনে লুকিয়ে আছে সকালের আলো এসে ডাক দিলে ঘুম ভাঙ্গে মা এক সানকি ভাত দিলে চেটে পুটে খেয়ে বেরিয়ে পড়ে বিজু ...

Read More »

শেকড়- দেবজ্যোতি কুণ্ডু

যখন তুমি অনেক ভীড়ে অনেক পথে ঘুরছ ফিরে অনেক সুরে গাইছ গান; যখন তুমি অনেক আলোয় অনেক ভালোয় যাচ্ছ নিয়ে অনেক মশাল কততো রঙ; যখন তুমি আপন মনে ইটের পরে ইটটি তুলে দিচ্ছ চাপা নিজের ঘর; যখন তুমি মরছ খুড়ে ইট-পাথর, পোড়া মাটির খোঁজে পরত পরত বসুন্ধরা- তখন তুমি ব্যস্ত ...

Read More »

স্মৃতি – মৌমিতা পাল

চিলেকোঠার ঘরটাতে পা দিলেই , ছড়ানো ছিটানো খেলনা গুলিকে হাতের মুঠোয় নিলেই, আমার শৈশব হুড়মুড়িয়ে সামনে আসে । গোপনে রাখা ধূসর বাক্সের স্মৃতিগুলো হাতড়াতে হাতড়াতে ফিরে আসে আমার ফেলে আসা স্মৃতি মুখর দিনগুলো। স্বপ্নের আধারে হারিয়ে যেতে যেতে আমি খুঁজে পাই কত স্মৃতির মুহূর্ত , কত মন কেমন করা দিনের ...

Read More »

সুখে আছি- রফিক উদ্দিন লস্কর

নদীর ধারে কাঁশফুল আর মস্ত হিজল গাছ, গভীর জলে সাঁতার কাটে কতরকম মাছ। একপাড়েতে ছোট্ট পাড়া নানা জাতীর বাস, আত্মীয়তায় শিকড় গেড়ে থাকে বারোমাস। জোয়ার ভাটা উঠলে পরে পাল্টে নদীর রূপ নেই প্রতিবাদ নেই ঝামেলা এক্কেবারেই চুপ। গাঙচিল ও মাছরাঙা পাখি উড়াউড়ি করে, দেখলে পরে সুযোগ বুঝে শক্ত করে ধরে। ...

Read More »

জঞ্জাল – কবি মোহাম্মদ মকিজুর রহমান

হিমেল হিংসা ছেঁকে নিয়ে এসো পুরানো যত মিছে জঞ্জাল ব্যঙ্গ-চিত্র বিদ্রূপ-বিকৃত আর ফ্যান ঘৃণা করি,টুকরো টুকরো পৃথিবী দিশাহারা ক্লান্ত চোখে অগ্নিরেখা দেখি মানব সভ্যতা আর সবুজ সুদূর প্রান্তর। কত ক্ষুধার ক্লান্তি,কত দীর্ঘশ্বাস শূন্যতা আমাকে করে মাতাল হে প্রেমের দেবতা,প্রেমের মুক্তি দাও। অপূণতায় হাত বাড়িয়ে দিলাম পোড়া কপালের ক্যানভাসে বিষাদের চেয়ে ...

Read More »

বড় ছেলে – ২ – মোহাম্মদ মকিজুর রহমান

পাঁচ বছর পর………. রিয়া, কেমন আছো? আমি রাশেদ বলছি। জানো তোমাকে অনেক মিস করি, তোমার দেওয়া হাত ঘড়িটা আমার অনেক পছন্দ হয়েছে। আমি রোজ হাতে দিয়ে ঘর থেকে বের হই….. তোমার দেওয়া জিনিস কি আমার অপছন্দ হবে বলো? এখন আমার মোবাইলে সবসময় চার্জ থাকে, কারন তোমার দেওয়া পাওয়ার ব্যাংকটা সবসময় ...

Read More »