যখন আপনি – মল্লিকা রায়

0
37

যখন আপনি উদ্ধারক……………..

তখন……………….
সাইরেন বাজিয়ে নগরে মুখর পদসভায়-
নিয়মের গলাগলি,বক্তৃতা,জনতা,কোলাহল-

পরদিন……….
কতক নিরুদ্দিষ্টের চটি,দেহ,পদ পিষ্ট অ-নাশক্ত লাশ-
খবরে প্রকাশ তারাই না কি
রোহিঙ্গ জ্ঞাতিভেদের নির্মম শিকার।

ধর্মাবতার, এক্ষনে যদি উল্লেখ করি
অসংখ্য মিছিলে যাদের মুখে ছিল চমৎকার সমন্বয়,
ক্ষুরধার ভাষণে সময়ের উচ্ছ্বাস
বিনয়ে লুটিয়ে পরা মধুর সামঞ্জস্
আর হাতে পোষক দারিদ্রের গোটাকত্ থাল্-
যাতে দু’প্রকার ভেদাভেদ………..
মনস্তাপ নিধন আর-
প্রভুজির প্রসন্ন পরমান্নে বঞ্চিতের আত্মজয়……..।

………….বিশ্বাস করবেন?

গনলুট বাঁচাতে, প্রত্যশিত সভ্যতায় যারা সেঁটে দিয়ে গেল-
আকালের ধ্বংসবীজে আগাম সময়ের প্রতিদ্বন্দী…..
আগামীর যে বীজ ফুটে ঢেকে যাবে বিশুদ্ধ প্রশ্বাস………..
খাবি খাবে দরবারের প্রত্যন্ত স-বিনয়-
ছেঁটে-কেটে নগরের প্রাসঙ্গিক আর্তি-আর……
পরদিন, লোটাবে পিষ্ট দেহ মিছিলের সহযোগ প্রান্তে-
মুষ্টিকয় তারণা থেকে নিত্যের সমাগমে-
জোড়া হবে অলৌকিক আরো অধ্যায়-
যাদের নালিশ ছিল আমি,তুমি,হারাণের মা’র-
ধূলিস্মাৎ দেহে সেঁটে যাবে প্রগতির জুতার আওয়াজ-
ভাতঘরে রাঁধা হবে খুঁদ,কুড়ো ব্যঙ্গের প্রয়াস
রোহিঙ্গা অধ্যায়………..অার-
ম’ ম” স্বাদে তোমাদের ডিশে’র ঝলকে-
চোখে , মুখে শান্তি প্রলেপ-
মেখে নেবে মিঠা আঁতরের কেশর আ-ঘ্রাণ-পদপিস্টরা-

ধর্মাবতার…………….

আপনি তখন ? বিচ্যুত হবে বলে আগাম সাইলেন্স-
না কি প্রহসন জিজ্ঞাসায় প্রলেপের মত-
জুরিদের মাথা’র প্রসাদে…………….

কিছু চেনা পটে ঝোলাবেন ধূপ,দীপ,মালা ?

মল্লিকা রায়
আমি মল্লিকা রায় ,উঃ ২৪ পরগণা জেলায় বারাসাত শহরের বাসিন্দা, ছোটবেলা থেকে নিছক আবেগের বশে লেখায় প্রবেশ। পাশে পড়াশুনা,জীবন-যাপন ও বিভিন্ন খ্যাতিমান কবি,সাহিত্যিকদের লেখায় আত্মনিবেদন।দীর্ঘকাল ধরে কিছু ছোট পত্র-পত্রিকায় সৌজন্যমূলক লেখায় আত্ম-প্রকাশ। পারিবারিক প্রেরণার উৎস মা, যার একাংশ জুড়ে আমার তার প্রতি প্রবল আকূতি রয়েছে, বিশেষত লেখার মূল সূত্র বিভিন্ন সামাজিক প্রেক্ষাপটে মানুষের নানান প্রভেদ-বিভেদ, ঘাত-প্রতিঘাত প্রভৃতি আমায় লেখণী তুলতে উদ্বুদ্ধ করেছে। বাংলা কবিতা আসরে প্রবেশ প্রায় ২০১৫ তে, এডমিন এবং অজস্র সহযোগী বন্ধুর সহযোগিতায় এ পর্য়ন্ত পৌঁছানো।