মা – উত্তম চক্রবর্তী

যখন শিশু জন্ম নিলো মায়ের কোলে ভবে,
প্রথম দেখায় হৃদয় ভরে খুশিতে মার তবে।
শিশুর মুখে প্রথম খাবার মায়ের বুকের দুধ,
দিনেদিনে বেড়ে উঠে যাদুমণি পুত।

মায়ের মুখের প্রথম বুলি শিশু শিখে নেয়,
মা ডাকা তাই শুরু করে ধীরে ধীরে সেই।
হাঁটি হাঁটি পাপা করে হাঁটা শিখে যখন,
হেলে দুলে পড়তে গেলে ধরে ফেলে তখন।

বর্ণমালা শুরু করে মায়ের হাতটি ধরে,
অক্ষরগুলো পড়তে শেখে মায়ের মুখের সুরে।
ঘুমপাড়ানি গানে শিশু ঘুমিয়ে যায় রাতে,
সুখেদুঃখে মায়ের বুকে কতো স্মৃতির সাথে!

শৈশব কৈশোর পার করে আজ যৌবনে পা রাখে,
মায়ের শাসন বজায় থাকে নিয়মনীতি দেখে।
মা যে মোদের সোনার খনি সারাজীবন ধরে,
নিঃস্বার্থ যার ভালোবাসা কোথা পাবে ভাইরে!

তাং -১৩/০৭/১৮

উত্তম চক্রবর্তী
সৎ ও সত্যে বিশ্বাসী তিনি। তিনি মনে করেন লেখালেখি সৌখিন মনের পরিচায়ক। প্রতিটি মানুষ তার ব্যক্তিসত্তার আড়ালে কোন না কোন সুপ্ত প্রতিভা লুকিয়ে রাখে। লেখক ও তার ব্যতিক্রম নয় বলে তিনি মনে করেন। কবিতা ককটেলের লেখকদের লেখা পড়ে অনুপ্রাণিত হয়ে নিজে ও টুকিটাকি লেখার চেষ্টায় নিযুক্ত হয়েছেন। অনেক অনেক ধন্যবাদ জানাই কবিতা ককটেলকে এত সুন্দর প্রয়াসের জন্য।