মাইক্রোফোনটা আমাকে দিন –এবিএম সোহেল রশিদ

মাইক্রোফোনটা আমাকে দিন
।। এবিএম সোহেল রশিদ।।
.
নগ্নতার বিরুদ্ধে আজকাল সবাই একাট্টা
আধুনিক সংক্ষিপ্ত পোশাকে সমাজের জেল্লাকে
আরও উচ্চতায় নিতে ব্যস্ত যারা
তারাই এখন সমাজপতি, উজ্জ্বল তারকা
.
বলুন, নগ্নতা নেই কোন খানে
ধুমপানের নিষিদ্ধ বিজ্ঞাপনে, অতিথি আপ্যায়নে
কবিতা, উপন্যাস, সিনেমার বৃত্ত ছেড়ে
শালীনতার জাল ছিঁড়ে ধীরে ধীরে
ঢুকেছে পার্কে, রিকশায়, বন্ধুত্বের নীড়ে
.
ধোপদুরস্ত পোশাক পড়ে, এই শহরে
এইসব কথাই জনতার মঞ্চে আওড়াও
কী বলা উচিত কী উচিত নয় তাও জানো
নিজেকে ভাবো সবচেয়ে জ্ঞানী; তাই
শোনাও নানান অপকীর্তির বাণিজ্যিক তথ্য
.
কণ্ঠের কারুকার্যে মুগ্ধতা বিলাও যত্রতত্র
সম্মোহিত করার সব কৌশলই রপ্ত
মত্ত হও সভায়, রসালো কথামালায়
হাততালিতে সিক্ত হয়ে ফিরে যাও
আখের গোছানো সুচতুর বক্তাদের আসনে।
.
বাহারি রঙের পোশাকে, কবিতার দেশে
অক্ষরের কারুকার্যে ঘুরো রমণীর চারপাশে
তোমাদের ছন্দে উচ্চারিত হচ্ছে কামশাস্ত্র
পাঠক কাটতির এটাই নাকি ব্রহ্মাস্ত্র
যোদ্ধারও, এই নগ্নতার নীচে দাঁড়িয়ে
হারিয়ে ফেলেছে বোধশক্তি, খুঁজছে মুক্তি
.
আজকাল সবকিছুই এড়িয়ে যাওয়া সহজ
অথচ যারা এখন ন্যায্য কথা বলে
যারা সামাজিক ব্যাধি রুখতে চায়
বলতে পারেন, তাদেরকে শোনে কয়জন
.
মঞ্চটা কিছুক্ষণ আমজনতার হাতে দিন
হয়তো সাজিয়ে গুছিয়ে বলতে পারবে না
কবিতার বাগ্মিতায় অন্তর চোখ জাগাবে না
জনতার রোষে যে ঝড় উঠবে উদ্যানে
তা কতটা জটিল, জানে না নগ্নতার শঙ্খচিল

.
আমাকেও দিতে পারেন কছুটা সময়
অন্ধকার সৈকতে আলোর বৃষ্টি ঝরাবো
কথার বাণে, উঠবে প্রলয় দেশময়
শোনাবো সত্যভাষণ, থামাবো চাটুকারের তোষণ
.
আমিও আজ নগ্নতার কথা বলবো
আমি চাই নগ্নতাকে উষ্ণতায় ঢাকতে
পরশ বুলাতে চাই প্রতিটি দেহবাঁকে
রোমাঞ্চিত হচ্ছেন! ভাবনাটা প্রসারিত করুন
মাইক্রোফোনটা অনুগ্রহ করে আমাকে দিন
.
অকুতোভয়ে জনতাকে শোনাবো করুণ উপাখ্যান
রেললাইনের ধারে নগ্ন শিশুদের হাহাকার
ফুটপাতে নগ্ন দুটি হাতের আকুতি
ক্ষুধার্ত মানুষের নগ্নথালায় দু’মুঠো আহার
শূন্যতার বৃত্তে শিশুর আগমনী ধ্বনি
কান পেতে শুনি; বুলাতে চাই
মানবতার হাত, সেই সব নগ্ন দেহে
তিন খুঁটির গৃহে আছে বেঁচে
.
যে যুবতি শীতল ঘরে নগ্নতা বেঁচে
চালায় তার বাবার অভাবের সংসার
জানতে চেয়েছেন কি কখনও তাকে
কী ছিল সমাজের বিরুদ্ধে অভিযোগ তার।
অধিকার আদায়ের দাবীতে মিছিলের অগ্রভাগে
ছুটছিল শ্রমিকনেতা বাবা স্লোগানে স্লোগানে
রাষ্ট্রযন্ত্রের কয়েকটি সীসায় হলেন তিনি
গণতন্ত্রের দেয়ালে, লালকাগজে ছাপানো পোস্টার।
.
শিক্ষা ও কর্মসংস্থানের অধিকার চাইতে গিয়ে
জেলখানার অন্ধকারে নিজেকে করছে আবিষ্কার
যে ছাত্রটি আজ; কী জবাব দিবেন তাকে
সে যদি জানতে চায় বাংলাদেশটা কার?
.
এইসব ক্ষতের কথা যদি বলি
নগ্নতার বিরুদ্ধে জমায়েত হওয়া আপনারাও
কেতাদুরস্ত পোশাক খুলে নগ্ন হয়ে যাবেন
দয়া করে মাইক্রোফোনটা আমাকে দিন