Home / কবিতা / বৈপরীত্য – বিপ্লব শীল

বৈপরীত্য – বিপ্লব শীল

কুঁড়ির বৃন্তে জ’মে ছিল শীত,
তাই ফুলের পাপড়ি মেলে এল বসন্ত;
ব্যথার পাশে শুয়ে ছিল রাত,
আমার মা কে ছাড়া ঘুম না আসা পর্যন্ত।
দিন তোমাকে যে ছেলেটা এখনও দেখতে পায়নি কোথাও
রোদসীর রোদ্দুরে,
তুমিই যার আঠালো দু’চোখ ফুটিয়ে ছিলে নিষ্ঠুর পাথারে;
রাত কে তো সে কখনও অন্ধকারে দেখে না
তারায়-তারায় সাজানো চাঁদনির জলসা ঘরে ?
দক্ষিণা বাতাসের গায়ে ক্লান্ত শরীর এলিয়ে দিলে
কী আরাম, কী সুখ…
অসুখ,
তুমি ছাড়া সে ওষুধ কেউ জানে না, স্থলে-জলে !
জলে নিভেছে আগুন,
তাই মনে পড়েছে ফাগুন,
তুমি এসেছিলে তুহিন পেরিয়ে যে দিন—
নিরীহ মাটির ঔরস বিহীন বজ্রবিদ্যুৎ তুমিও তো
কেবলই নীরব সুনসান, খুব স্থির মরুতের ন্যায় অনুভূতি হীন।
সুখ,
তোমার অসুখ যে বড়োই সঙিন
মর্মান্ত…
কুঁড়িরর বৃন্তে জ’মে ছিল শীত,
তাই ফুলের পাপড়ি মেলে এল বসন্ত;
ব্যথার পাশে শুয়ে ছিল রাত,
আমার মা কে ছাড়া ঘুম না আসা পর্যন্ত।

About Rider

Biplab Sil

মন্তব্য করুন