বাসনা-২ – কবি মোহাম্মদ মকিজুর রহমান

0
16

হে মোর প্রিয়া, তৃষ্ণা আমার জাগে
এত প্রেম বুকে তোমার, তবুও তুমি দাও না ধরা!
কত আশা করে ভালবেছিলাম,
তুমি আসলেনা মোর হৃদয়ো পিঞ্জিরার পোষা পাখিরে,
আমি দুরন্ত প্রেমিক,ক্লান তোমার প্রেমে,
ওগো প্রিয়সি!!!
আমি আকাশের শূন্যে চলে যাব,
তোমারি প্রেমের বিরহ্!

হে কিশোরী, খোলো তোমার মনের দ্বার
তোমার আন্তরের সারিতে সারিতে করব বপন,
ভালবাসার গিরি পথ, অপেক্ষা তোমার জন্য
নদীর কূলে ফুলের বনে, তোমারি জন্য
প্রেমের অঞ্জলি দিলাম আমার আন্তরে।
করিবোনা তোমার নিন্দা তবে বলি
তুমি বড় নিষ্ঠুর মেয়ে,আমাকে ঘুরালে
শত ছলনার নীড়ে।
তুমি পাশে না থাকিলে,আশ্রু ধারা শ্রবণে ঝরে,জীবনের শত দুঃখ-গীত
অতীত বর্তমান ভেসে যায় দুঃখ বাণে।
তুমি দেখিবে সুদূরে এসেছে আমার মৃত্যু
আমার বুকে দেখো সমুদ্রের মতন উত্তাল ঢেউ, তোমার প্রেমের যমুনা বয়ছে।
তোমার কতটা ভালবাসী ঐবিধাতা জানে।

হে হরিণী,আজকে তুমি এসে মোর হৃদয় কুঞ্জনে,সাজাবো জীবন,আমরা স্বপ্নের বাসরে,
যত নব পুষ্পের পরাগরেণু দিয়ে তোমার পায়ে মেখে দেব আলতা রঙ, করিয়া দেব স্নান গোলাপের জলে।
জগতের যত প্রেমিক আছে,তাদের মত আমরাও গাইবো প্রেমের গীতি সমাহার
আজকো তোমাকে দিব,আমার কবিতার পন্ডলিপি উপহার।
হে কিশোরী, নিঃশেষ করিও না,মোর বাসনা
ধরা দেব আমার আন্তরে,
তোমারে দেখিতে আমার মনে আশা,নিশিদিন প্রতিক্ষণে ক্ষনে।
তুমি যখন হেসে ওঠো,আমার দম বন্ধ হয়ে যায়,বারেবারে তোমারে এ মন কাছে পাবার আশায়,ছুটো যাই তোমার মনের কুঞ্জনে।
কাজল কালো চোখের বাঁকা চাওনি পড়েনা কোন দৃষ্টি,এযেন এক মায়ার ছবি
আমার স্বপ্ন ভাসে আকাশ জুড়ে, তুলি দিয়ে কত যত্নে রঙিন কাগজে এঁকেছিলাম
তোমার মুখটা,আরো ছবি আঁকেছি তোমার আমার হৃদয়ে।
কিশোরী তুমি অনন্ত কাল
থাকবে আমার হৃদয় জুড়ে,তোমার জন্য আমার ভালবাসার কমতি নেই,কখন ক্ষয় হবে না জীবনে।
নিত্য তোমায় ডাকি কাছে, তুমি অভিমানি যাও দুরে,
হে প্রিয়সি,তোমার ভালবাসা দিয়া আমি বেঁচে থাকবো অনন্ত কাল ধরে।
ধরণীর বুকে তোমাকে ভালবেসেছি
চাইনা মুক্তো মণি
মেহেদি পাতার মত ভিতরে আমার যন্ত্রনা
তোমাকে না পাওয়ার কষ্টে।
বন্ধু, তুমি অনন্ত কাল আমার ভালবাসা
সিন্ধু তরঙ্গের মত স্রোত বয়ে
কত অভিমান,কত ভালবাসা
কত দুঃখ কষ্টের রচনা মনে
চেয়ে নাহি দেখ, উদাসীন,
আমার স্বপ্ন নিয়ে খেলো তুমি নিশিদিন!

হৃদয়ে হৃদয় দিয়া দস্যুর সুরাসুর
খেলেছো প্রেমের বলিদান
হরিয়েছি জীবনের সকল প্রতিদান
যদি সুখে থাকে তুমি আমারে ভুলিয়া
তবে চাইবো না প্রেম।
তোমার অমৃত-সুধা করিনি আমি পাণ
রয়ে গেল মনের বাসনা, ক্রন্দন করিবো না,
যত জ্বালা দেও,স্মৃতি হয়ে থাকুক সকল ব্যথা,
শূন্যে মিলিয়ে যাব আমি একদিন, চারিধারে আঁধারে ঘেরা পথ
মন কাঁদে বারেবার, সীমাহীন অন্তর করে হাহাকার।

হে কিশোরী, মোর প্রিয়সি
তুমি অন্তর আমার,করে দিলে ছিদ্র,আমি বিদ্রোহ করিব না আর
তুমি সুন্দর আমার চোখে
তাই ভালবেসে ছিলাম
তুমি চলে যাও,
আমি কাঁদি,তোমার প্রেম বিরহে্
দুরন্ত পথ পাড়ি দিয়ে পেলামনা কূল
আমার অনন্ত বিরহের আগুনে পুড়ে, ইহকাল শুধু স্বপ্ন দেখলাম,সবি আমার ভুল।
বিদায় বেলায় একবার দেখা দাও, জুড়াই মনের সাধ,
মনের মাঝে বাজে আমার দুঃখের মাদল
প্রিয়া বিদায় বেলায় বলি
তুমি ভেঙেনা কারও মন
তুমি পাষাণী, তাই শুনতে পাওনা হৃদয় ভাঙার চিৎকার,
সীমাহীন জীবনে আমার শুধু যে হাহাকার।