চোখের পাতায়

0
74

গত বছর পুজোয় মামা দাদুর ওখানে পূজোটা কেটে ছিল খুবই আনন্দে ! স্বামী হারা দিদিমার হাত ধরে অষ্টমীর বিকেলে পুজোয় ঘোরা, সঙ্গে মামাতো বোন রেখা ।ভিড়ের মাঝে হারিয়ে যাওয়া গ্যাস বেলুন আর বোনের ছল ছলে চোখ !ফিরিয়ে দেওয়া নিজের বেলুন পেয়ে উৎমুক্ত নন্দিনী”র হাঁসি ! জিলিপির মিষ্টি সুগন্ধ,ছোটদের ঘোড়ায় চড়া দোলা,ফেরি দেওয়া বাঁশিওয়ালার সুমধুর সুর অপূর্ব দৃশ্য! চন্দন নগরের আলো তাঁর প্রথম দেখা ,,,টিয়ে পাখির ফুটবল,খুকুমনির পদ্মাঘাটে জল আনার দৃশ্য ,বাবুরাম সাপুড়ের সাপের নাচের আলোক চিত্র ! ছোট ছোট টবে রাধাসোহাগী ,গাঁদা, রজনীগন্ধার ইত্যাদি কেনার ভিড় যেন ফুলের মেলা !দূর থেকে ভেসে আসছে ছোটদের নাচ,গান,আবৃত্তির কন্ঠস্বর! হটাৎ দেখা পাশের বাড়ির নন্দের সঙ্গে ,ওর পিসিমার বাড়ি আমার মামার গ্রামে ! মামীমা জয়ন্তী ‘র দেওয়া পুজো খরচে কেনা বাঁশের বাঁশি নন্দ হাতে নিয়ে ফুঁ দেওয়া মজার অনুভূতি!ওই আনন্দে বৃষ্টির ধারাকে সঙ্গী করে দৌড়ে জগৎ জননীর দর্শন , আর আসুর নিধনের দৃশ্যায়ন!বছর ঘুরে এলো বছর,শরৎ আপন মহিমায় প্রকৃতির দুয়ারে ! পূজোর মহিমায় সেজেছে প্রকৃতি”মা,কাশফুল মেলে ধরেছে তার রূপের বাহার, শিউলি ফুলের গন্ধে ভরিয়েছে মন ! হালকা শীতের স্পর্শ এক নতুন অনুভূতি, ঢাকের কুড়কুড়াকুর,কাসরের শব্দ , মঙ্গল শঙ্খের ধ্বনি, ধূপ- ধূনোর সুগন্ধ ,মায়ের আগমনী মন্ত্র ,পূজো প্যান্ডেল,রঙ্গিন আলোর ঝলমল সব কিছুই ভেসে আসে চোখের পাতায়, আসে অনুভবে ! নতুন পোশাকের গন্ধ শুকে নিজেকে সাজিয়ে নেওয়ার চঞ্চলতা অস্থির করে ! বার বার দেখতে ইচ্ছে করে নিজের সুন্দর মুখ ,বন্ধুদের সঙ্গে হাতে হাত ধরে মুক্ত বৃহঙ্গের মতো ঘুরে বেড়াতে! জগৎ জননীর দশভুজা অপরূপ দৃশ্য ! আজ নি:সঙ্গ শুধু চোখের পাতায় স্বপ্ন আসে কিন্তু নিথর পাথরের নীলাভ চোখে না ঝরাতে পারে জল,না অনুভূতির বাস্তবায়ন ! অষ্টম শ্রেণীর সূর্য , ওঠে সূর্য তবু অন্ধকারের ছায়া! স্কুল ফেরার পথে ক্ষমতার লড়াইয়ের এসিড ছোঁড়ার আশীর্বাদ !