কহিলাম

কহিলাম
হাকিকুর রহমান

ঘরণীকে কহিলাম-
সদয় হও!
সে শুনিলোনা কোন কথা,
বাড়িলো হৃদয়ে অযাচিত ব্যথা।

ধরণীকে কহিলাম-
দ্বিধা হও!
সহিতে পারিনা আর,
হেরিতে পারিনা সকল রুদ্ধদ্বার।

রজনীকে কহিলাম-
নিদ্রা দাও!
বিনিদ্র যামিনী অতিক্রান্ত করিয়া অতি ক্লান্ত আমি,
তাইতো কম্পিত চরণে, চলিতেছি কোন প্রকারে থামি থামি।

তরণীকে কহিলাম-
পারে লও!
সে অন্য অভ্যাগতবৃন্দকে লইয়া প্রস্থান করিলো,
কিসের হোমাগ্নি অন্তকরণে প্রবিষ্ট হইলো।

অতঃপর,
বিমগ্ন চিত্তে রহিলাম হেথা বসি,
দিবাকে ডিঙিয়া আবির্ভূত হইলো শশী।