ঈশ্বর কাঁদছে

পৃথিবী মারা গেছে, তার প্রাচীন খোলসে
লেগে নেই কোনো জন্মদাগ।
ধু-ধু প্রান্তরে শুধু নীরস পাথর।
নিস্তব্ধ বাজনা বাজছে ফাঁকা হাওয়ার বুকে।
একদিন নদী ছিল,পাখিদের গান ছিল,
সোনালী প্রভাত ছিল, ফুলে প্রজাপতি ছিল।
পাতায় পাতায় ছিল সবুজের ছাপ,
মানুষের ইট, কাঠ, জঙ্গলও ছিল তার বুকে।
চুপচাপ সব কিছু মুছে গেছে।
মৃত্যুর গভীর থেকে উঠে আসছে বিষাক্ত নিশ্বাস।
নক্ষত্রের ফ্যাকাশে আলোরা
শুরু করতে পারছে না নতুন কোনও গান।
প্রেতপুরীতে একলা দাঁড়িয়ে রয়েছেন ঈশ্বর।
আশেপাশে কেউ নেই যে হাত রাখবে তার কাঁধে।
ঈশ্বর কাঁদছে, তার জমাট কান্নারা সৃষ্টি করছে নতুন নদীর!

সুদীপ্ত বিশ্বাস
জন্ম ১৯৭৮,নদিয়ার রানাঘাটে।কবিতা লিখছেন ১৯৯২ সাল থেকে।কবির কবিতা প্রকাশিত হয়েছে শুকতারা, নবকল্লোল, উদ্বোধন, বসুমতী, কবিসম্মেলন, চির সবুজ লেখা, তথ্যকেন্দ্র, প্রসাদ, দৃষ্টান্ত, গণশক্তি ইত্যাদি বাণিজ্যিক পত্রিকা ও অজস্র লিটিল ম্যাগাজিনে। কবিতার আবৃত্তি হয়েছে আকাশবাণী কলকাতা রেডিওতে। ঝিনুক জীবন কবির প্রথম বই। ২০১০ এ প্রকাশিত হয়। এরপর মেঘের মেয়ে, ছড়ার দেশে, পানকৌড়ির ডুব, হৃদি ছুঁয়ে যায়, Oyster Life বইগুলো এক এক করে প্রকাশিত হয়েছে। দিগন্তপ্রিয় নামে একটা পত্রিকা সম্পাদনা করেন। কবি পেশাতে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট। নদিয়া জেলার রানাঘাটের বাসিন্দা। শিক্ষাগত যোগ্যতা বি ই,এম বি এ, ইউ জি সি নেট। স্বরবৃত্ত, অক্ষরবৃত্ত ও মাত্রাবৃত্ত তিন ছন্দেই কবিতা লেখেন।বড়দের কবিতার পাশাপাশি ছোটদের জন্যও কবিতা লেখেন।