আমার ছেলেবেলা

0
31

সে এক ছেলেবেলা ছিল—
মায়ের আঁচল,ঘুমপাড়ানি গান ছিল,
মাটির দুয়ারে আলপনা ছিল,
চার আনার লজেন্স,আট আনার আইসক্রিম—
আকাশ ছুঁতে চাওয়া ঘুঁড়ি,স্বপ্নের হামাগুঁড়ি
বর্ণপরিচয়,ধারাপাত আর ঠাকুমার ঝুলি,ছিল—
সে সব বড় প্রিয় ছিল….
সে এক ছেলেবেলা ছিল।

পাড়ার মাইকে হেমন্ত-নচিকেতা-সুমনের গান ছিল,
দূরদর্শন,মেট্রো চ্যানেল ছিল,
শচীন-সৌরভের ক্রিকেট ছিল,
রবিবারের ছায়াছবি,শ্রীকৃষ্ণ,শক্তিমান,
আর’ হ্যারিকেনের আলো ছিল,
গ্রামের মেঠো পথ ছিল—
বৃষ্টিতে ভেজা ছিল,
ফুল কুড়ানো সকাল ছিল
আম কুড়ানো ঝড়ের বিকেল ছিল—
সে সব বড় প্রিয় ছিল…
সে এক ছেলেবেলা ছিল।

বাবার চওড়া কাঁধে চেপে,দামোদর পেরোনো ছিল—
মায়ের কোলে বসে গ্রামের মেলায়,
কত স্বপ্ন বিক্রি,দেখা ছিল—
প্রথম সাইকেল চড়ার,আনন্দ ছিল
পাড়ার মাঠে লুকোচুরি,বৌ-বসন্ত,কিতকিত্
আরো কত কত খেলা ছিল—
বড় বড় মেয়েরা বন্ধু ছিল—
“ইশক্ ম্যায় দিওয়ানা
তোকে খেলতে নেবো’না
তোর গোদা গোদা পা
তুই ভোগে চলে যা,
মুখে মুখে এমন ছড়া ছিল।
সে এক ছেলেবেলা ছিল—
আমার বড় প্রিয় ছিল।

কাঠিলজেন্সের অমৃত স্বাদ
সুপারি পাতায় ছু-মন্তর—
দূর্গাপুজোয় দল বেঁধে ঘোরা
বুড়িমার চকোলেট বম,
কলার ভেলায় পুকুরে স্নান,

সে এমন ছেলেবেলা ছিল—

স্কুল থেকে পালানো ছিল,
চিলেকোঠার ঘর ছিল,
মায়ের হাতে মার ছিল,
লুকিয়ে শরৎচন্দ্র রবীন্দ্রনাথ,পড়া ছিল
উত্তম-সুচিত্রার প্রেম ছিল,
রবি ঘোষ-ভানুর কমেডি ছিল,
কারণে-অকারণে,ঝগড়া রাগ অভিমান ছিল—
অনেক না পাওয়া ছিল,
তবু কত স্বপ্ন ছিল,
সে এক ছেলেবেলা ছিল,নষ্টালজিয়া ছিল—
তবু বড় প্রিয় ছিল……