শুরু করি লয়ে পাক নাম আল্লার,
অনন্ত সাগর যিনি দয়া করুণার।

শপথ প্রথম দিবস-বেলার

 ​​​​ শপথ রাতের তিমির-ঘন,

করেননি প্রভু বর্জন তোমা,

 ​​​​ করেননি দুশমনি কখনও।

পরকাল সে যে উত্তমতর

 ​​​​ ইহকাল আর দুনিয়া হতে,

অচিরাৎ তব প্রভু দানিবেন

 ​​​​ (সম্পদ) খুশি হইবে যাতে।

পিতৃহীন সে তোমারে তিনি কি

 ​​​​ করেননি পরে শরণ দান?

ভ্রান্ত-পথে তোমারে পাইয়া

 ​​​​ তিনিই না তোমা পথ দেখান?

তিনি কি পাননি অভাবী তোমারে

 ​​​​ অভাব সব করেন মোচন?

করিয়ো না তাই পিতৃহীনের

 ​​​​ উপরে কখনও উৎপীড়ন।

যে জন প্রার্থী তাহারে দেখিয়ো

 ​​​​ কোরো না তিরস্কার কভু,

ব্যক্ত করহ নিয়ামত যাহা

 ​​​​ দিলেন তোমারে তব প্রভু।

সুরা দ্বোহা
এই সুরা মক্কা শরিফে নাজেল হয়। ইহাতে ১১টি আয়াত, ৪০টি শব্দ ও ১৬৬টি অক্ষর আছে।

শানে-নজুল – হজরতের নিকট কোনো কারণে কয়েকদিন (কাহারও মতে ১০, কাহারও মতে ১৫, কাহারও মতে ৪০ দিন) অহি নাজেল না হওয়ায় কাফেরেরা বিদ্রুপ করিয়া বলিতেছিল – মোহাম্মদকে (দঃ) তাঁর আল্লা পরিত্যাগ করিয়াছেন। ইহা শ্রবণ করিয়া হজরত দুঃখে মর্মাহত হন, তখন এই সুরা নাজেল হয়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।