সমাধি – শ্রীজাত

0
15

তুলোপুকুর, ডুবন্ত এক মাথা
শরীর যেন অন্তিমে হয় শিথিল
ঘুমের নীচে স্বপ্ন লেখার খাতা –
বালিশঘেরা গ্রামের পরিচিতি।

অনেক হল এই ভ্রমণের ঘড়ি
সময়মতো না থামলে সব বৃথা।
দৃষ্টি টানে দু’চোখে চকখড়ি
নইলে তো মন আরওই দূরে দিতাম।

এখন নিকট, গাছের মতো প্রিয়
বাতাসে তার আত্মীয়রা থাকেন
ক্লান্ত হলে যত্নে রেখে দিও
আমায়, কোনও ভাঙা পথের বাঁকে।

শরীর যেন শুইয়ে রাখে গানও।
সফেদ চাদর, পাটভাঙা সন্তাপে
আকাশপথে শুশ্রূষাকে আনো।
বিরহপ্রেস হাতের পাতা ছাপে…

জল ঝরে, জল জন্ম পেরোয় ঝোরা
যুগ পেরিয়ে চোখ বুজি, চোখ খুলি…
ভাগ করে নেয় পিশাচ ও সন্তরা
রুটির মতো, আমার লেখাগুলি।

স্বপ্নেরা হোক শীতল ও ভারবহ
মন পেরিয়ে যায় না কোনও নেশাই
শরীর যাতে সমাধি পায় সহজ –
স্নানের জলে ঘুমের ওষুধ মেশাই।

বাংলা ভাষার আধুনিক যুগের কবিদের মধ্যে শ্রীজাত অন্যতম। সম্পূর্ণ নাম "শ্রীজাত বন্দ্যোপাধ্যায়"। জন্ম ২১ ডিসেম্বর, ১৯৭৫। জন্মস্থান কলকাতা। শ্রীজাত আনন্দ পুরস্কারে (২০০৪) ভূষিত হয়েছেন তাঁর উড়ন্ত সব জোকার কবিতার বইয়ের জন্য। তাকে বিংশ শতাব্দীর অন্যতম বাঙালি নোবেল মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে গন্য করা হয়। তিনি বর্তমানে ফেসবুকেও সক্রিয় আছেন। এই সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটের মাধ্যমে তিনি বিভিন্ন সাম্প্রতিক ঘটনাবলীর সম্পর্কে নিজের অভিমত ব্যক্ত করেছেন এবং ফেসবুকেও তিনি প্রবল জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন।

দয়া করে মন্তব্য করুন

দয়া করে মন্তব্য করুন
দয়া করে আপনার নাম লিখুন