ওরে  ​​​​ ধ্বংস-পথের যাত্রীদল!

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ধর হাতুড়ি,​​ তোল কাঁধে শাবল॥

 ​​​​ 

আমরা ​​ হাতের সুখে গড়েছি ভাই,

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ পায়ের সুখে ভাঙব চল।

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ধর হাতুড়ি,​​ তোল কাঁধে শাবল॥

​​ 

ও ভাই ​​ আমাদেরই শক্তিবলে

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ পাহাড় টলে তুষার গলে

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ মরুভূমে সোনার ফসল ফলে রে!

মোরা সিন্ধু মথে এনে সুধা

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ পাই না ক্ষুধায় বিন্দু জল।

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ধর হাতুড়ি,​​ তোল কাঁধে শাবল॥

 ​​​​ 

ও ভাই ​​ আমরা কলির কলের কুলি,

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ কলুর বলদ চক্ষে-ঠুলি

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ হিরা পেয়ে রাজ-শিরে দিই তুলি রে!

আজ  ​​ ​​​​ মানবকুলের কালি মেখে

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ আমরা কালো কুলির দল।

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ধর হাতুড়ি,​​ তোল কাঁধে শাবল।

 ​​​​ 

আমরা  ​​​​ পাতাল ফেড়ে খুঁড়ে খনি

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ আমি ফণীর মাথার মণি,

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ তাই পেয়ে সব শনি হল ধনী রে!

এবার  ​​ ​​​​ ফণীমনসার নাগ-নাগিনি

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ আয় রে গর্জে মার ছোবল!

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ধর হাতুড়ি,​​ তোল কাঁধে শাবল॥

 

যত  ​​ ​​ ​​​​ শ্রমিক শুষে নিঙড়ে প্রজা

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ রাজা-উজির মারছে মজা,

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ আমরা মরি বয়ে তাদের বোঝা রে।

এবার  ​​ ​​​​ জুজুর দল ওই হুজুর দলে

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ দলবি রে আয় মজুর দল!

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ধর হাতুড়ি,​​ তোল কাঁধে শাবল॥

 

ও ভাই  ​​​​ মোদের বলে হতেছে পার,

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ হপ্তা রোজে সপ্ত পাথার,

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ সাঁতার কেটে জাহাজ কাতার কাতার রে!

 ​​​​ তবু  ​​ ​​​​ মোরাই জনম চলছি ঠেলে

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ক্লেশ-পাথারের সাঁতার-জল!

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ধর হাতুড়ি,​​ তোল কাঁধে শাবল॥

 

​​ আজ  ​​ ​​​​ ছ-মাসের পথ ছ-দিনে যায়

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ কামান-গোলা,​​ রাজার সিপাই

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ মোদের শ্রমে মোদেরই সে কৃপায় রে!

ও ভাই  ​​ ​​​​ মোদের পুণ্যে শূন্যে ওড়ে

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ওই জ্ঞুঁড়োদের উড়োকল!

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ধর হাতুড়ি,​​ তোল কাঁধে শাবল॥

 

ও ভাই  ​​​​ দালান-বাড়ি আমরা গড়ে

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ রইনু জনম ধুলায় পড়ে,

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ বেড়ায় ধনী মোদের ঘাড়ে চড়ে রে!

আমরা  ​​ ​​​​ চিনির বলদ চিনিনে স্বাদ

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ চিনি বওয়াই সার কেবল।

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ধর হাতুড়ি,​​ তোল কাঁধে শাবল॥

 

ও ভাই  ​​ ​​​​ আমরা মায়ের ময়লা ছেলে

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ কয়লা-খনির বয়লা ঠেলে

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ যে অগ্নি দিই দিগ্‌বিদিকে জ্বেলে রে!

​​ এবার  ​​ ​​​​ জ্বালবে জগৎ কয়লা-কাটা

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ময়লা কুলির সেই অনল।

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ধর হাতুড়ি,​​ তোল কাঁধে শাবল॥

 ​​​​ 

ও ভাই  ​​ ​​​​ আমাদের কাজ হলে বাসি

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ আমরা মুটে কল-খালাসি!

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ডুবলে তরি মোরাই তুলতে আসি রে!

আমরা  ​​ ​​ ​​​​ বলির মতন দান করে সব

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ পেলাম শেষে পাতাল-তল

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ধর হাতুড়ি,​​ তোল কাঁধে শাবল॥

 ​​​​ 

মোদের  ​​ ​​ ​​​​ যা ছিল সবই দিইছি ফুঁকে,

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ এইবারে শেষ কপাল ঠুকে

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ পড়ব রুখে অত্যাচারীর বুকে রে!

আবার  ​​ ​​ ​​​​ নূতন করে মল্লভূমে

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ গর্জাবে ভাই দল-মাদল!

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ধর হাতুড়ি,​​ তোল কাঁধে শাবল॥

 

 ​​​​ ওই  ​​ ​​ ​​​​ শয়তানি চোখ কলের বাতি

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ নিবিয়ে আয় রে ধ্বংস-সাথি!

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ধর হাথিয়ার,​​ সামনে প্রলয়-রাতি রে!

 ​​​​ আয়  ​​ ​​​​ আলোক-স্নানের যাত্রীরা আয়

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ আঁধার-নায়ে চড়বি চল!

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ধর হাতুড়ি তোল কাঁধে শাবল॥

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।