লো কিশোরী কুমারী!

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ পিয়াসি মন তোমার ঠোঁটের একটি গোপন চুমারই॥

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ অফুট তোমার অধর ফুলে

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ কাঁপন যখন নাচন তুলে

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ একটু চাওয়ায় একটু ছুঁলে গো!

তখন  ​​ ​​ ​​ ​​​​ এ-মন যেমন কেমন-কেমন কোন্ তিয়াসে কোঙারি? –

 ​​​​ ওই  ​​ ​​ ​​​​ শরম-নরম গরম ঠোঁটের অধীর মদির ছোঁয়ারই।

 ​​​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ বুকের আঁচল মুখের আঁচল বসন-শাসন টুটে​​ 

ওই  ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ শঙ্কা-আকুল কী কী আশা ভালোবাসা ফুটে সই?

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ নয়ন-পাতার শয়ন-ঘেঁসা

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ফুটচে যে ওই রঙিন নেশা

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ভাসা-ভাসা বেদনমেশা গো!

 ​​​​ ওই  ​​ ​​ ​​​​ বেদন-বুকে যে সুখ চোঁয়ায় ভাগ দিয়ো তার কোঙারই!

আমার  ​​ ​​ ​​​​ কুমার হিয়া মুক্তি মাগে অধর ছোঁয়ায় তোমারই॥

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।