আমরা  ​​​​ নীচে পড়ে রইব না আর

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ শোন রে ও ভাই জেলে,

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ এবার উঠব রে সব ঠেলে!

 ​​​​ ওই  ​​​​ বিশ্ব-সভায় উঠল সবাই রে,

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ওই  ​​ ​​​​ মুটে মজুর হেলে।

এবার  ​​​​ উঠব রে সব ঠেলে॥

​​ 

​​ আজ  ​​​​ সবার গায়ে লাগছে ব্যথা

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ সবাই আজই কইছে কথা রে,

আমরা  ​​​​ এমনি মরা,​​ কই নে কিছু

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ মড়ার লাথি খেলে।

এবার  ​​​​ উঠব রে সব ঠেলে॥

​​ 

আমরা  ​​​​ মেঘের ডাকে জেগে উঠে ​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ পানসিতে পাল তুলি।

আমরা  ​​​​ ঝড়-তুফানে সাগর-দোলার

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ নাগরদোলায় দুলি।

ও ভাই  ​​​​ আকাশ মোদের ছত্র ধরে ​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ বাতাস মোদের বাতাস করে রে।

আমরা  ​​ ​​​​ সলিল অনিল নীল গগনে

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ বেড়াই পরান মেলে।

এবার  ​​ ​​​​ উঠব রে সব ঠেলে॥

​​ 

​​ হায়  ​​ ​​​​ ভাই রে,​​ মোদের ঠাঁই দিল না

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ আপন মাটির মায়ে

​​ তাই  ​​ ​​​​ জীবন মোদের ভেসে বেড়ায়

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ঝড়ের মুখে নায়ে।

ও ভাই  ​​​​ নিত্য-নূতন হুকুম জারি

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ করছে তাই সব অত্যাচারী রে,

​​ তারা  ​​​​ বাজের মতন ছোঁ মেরে খায়

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ আমরা মৎস্য পেলে।

এবার  ​​​​ উঠব রে সব ঠেলে॥

 ​​​​ 

আমরা ​​ তল করেছি কতই সে ভাই

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ অথই নদীর জল,

ও ভাই ​​ হাজার করেও ওই হুজুরদের

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ পাইনে মনের তল।

আমরা ​​ অতল জলের তলা থেকে

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ রোহিত-মৃগেল আনি ছেঁকে রে,

এবার  ​​​​ দৈত্য-দানব ধরব রে ভাই

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ডাঙাতে জাল ফেলে।

এবার  ​​​​ উঠব রে সব ঠেলে॥

 

আমরা  ​​​​ পাথর-জলে ডুব-সাঁতার দিই

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ মরেও নাহি মরি,

আমরা  ​​​​ হাঙর-কুমির-তিমির সাথে

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ নিত্য বসত করি।

ও ভাই ​​ জলের কুমির জয় করে কি

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ কুমির হল ঘরের ঢেঁকি রে,

ও ভাই  ​​​​ মানুষ হতে কুমির ভালো

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ খায় না কাছে পেলে।

এবার  ​​​​ উঠব রে সব ঠেলে॥

 ​​​​ 

ও ভাই ​​ আমরা জলে জাল ফেলে রই,

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ হোথা ডাঙার পরে

আজ  ​​ ​​​​ জাল ফেলেছে জালিম যত

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ জমাদারের চরে।

ও ভাই ​​ ডাঙার বাঘ ওই মানুষ-দেশে​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ছেলে-মেয়ে ফেলে এসে রে,

আমরা ​​ বুকের আগুন নিবাই রে ভাই,​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ নয়ন-সলিল ঢেলে।

এবার  ​​​​ উঠব রে সব ঠেলে॥

 ​​​​ 

ও ভাই ​​ সপ্ত লক্ষ শির মোদের ভাই ​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ চৌদ্দ লক্ষ বাহু,

​​ ওরে  ​​​​ গ্রাস করেছে তাদের ভাই আজ

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ চৌদ্দজনা রাহু।

 ​​​​ যে  ​​​​ চৌদ্দ লক্ষ হাত দিয়ে ভাই

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ সাগর মথে দাঁড় টেনে যাই রে,

​​ সেই  ​​​​ দাঁড় নিয়ে আজ দাঁড়া দেখি

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ মায়ের সাত লাখ ছেলে।

এবার  ​​​​ উঠব রে সব ঠেলে॥

​​ 

ও ভাই ​​ আমরা জলের জল-দেবতা, ​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ বরুণ মোদের মিতা,

মোদের ​​ মৎস্যগন্ধার ছেলে ব্যাসদেব​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ গাইল ভারত-গীতা।

আমরা  ​​​​ দাঁড়ের ঘায়ে পায়ের তলে ​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ জলতরঙ্গ বাজাই জলে রে,

আমরা  ​​​​ জলের মতন জল কেটে যাই,

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ কাটব দানব পেলে

এবার  ​​​​ উঠব রে সব ঠেলে॥

 ​​ ​​​​ 

অ ​​ আমরা ​​ খেপলা জাল আর ফেলব না ভাই,  ​​ ​​​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ একলা নদীর তীরে,

 ​​​​ আয়  ​​​​ এক সাথে ভাই সাত লাখ জেলে ​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ধর বেড়াজাল ঘিরে।

 ​​​​ ওই  ​​​​ চৌদ্দ লক্ষ দাঁড় কাঁধে ভাই ​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ মল্লভূমির মল্ল-বীর আয়রে,

 ​​​​ ওই  ​​​​ আঁশ-বটিতে মাছ কাটি ভাই, ​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ কাটব অসুর এলে!

​​ এবার  ​​​​ উঠব রে সব ঠেলে॥

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।