সুকুমার রায়ের ছড়া

সুকুমার রায়ের ছড়া বাংলা সাহিত্যের এক বিস্ময়! বাংলা তথা ভারতীয় সাহিত্যে তিনিই প্রথম ‘ননসেন্স রাইমের’ প্রবর্তক। ছোটদের বা শিশুদের জন্য লিখে যাওয়া তাঁর ছড়া, গল্প, নাটক আজও সমান ভাবে জনপ্রিয়। ক্ষীণ জীবন কালের মধ্যেই তিনি তাঁর প্রতিভার স্বাক্ষর রেখে গেছেন। আমাদের এই পাতায় তাঁরই কিছু অমর সৃষ্টিকে ধরে রাখার প্রয়াস হল মাত্র। আপনারা পড়েই চলে যাবেন না মন্তব্য করবেন, তাহলেই আমাদের প্রয়াস সার্থক হবে।

সুকুমার রায়ের ছড়া

অতীতের ছবি
অন্ধ মেয়ে
অবুঝ
অসম্ভব নয় !
আজব খেলা
আড়ি
আদুরে পুতুল
আনন্দ
আবোল তাবোল
আবোল তাবোল
আবোল তাবোল
আয়রে আলো আয়
আলোছায়া
আশ্চর্য
আহ্লাদী
একুশে আইন
ও বাবা!
কত বড়
কাঁদুনে
কাজের লোক
কাঠবুড়ো
কাতুকুতু বুড়ো
কানা-খোঁড়া সংবাদ
কানে খাটো বংশীধর
কি মুস্কিল
কিছু চাই?
কিম্ভুত
কুমড়ো পটাশ
কেন সব কুকুরগুলো
খাই খাই
খিচুড়ি
খুচরো ছড়া
খুড়োর কল
খোকা ঘুমায়
খোকার ভাবনা
গন্ধ বিচার
গল্প বলা
গানের গুঁতো
গোঁফচুরি
গ্রীষ্ম
গ্রীষ্ম (২)
চোর ধরা
ছবি ও গল্প
ছায়াবাজি
ছুটি
ছুটি (২)
জালা-কুঁজো সংবাদ
জীবনের হিসাব
টিক্ ‌- টিক্ ‌- টিক্‌
ট্যাঁশ গরু
ঠিকানা
ডানপিটে
তেজিয়ান
দাঁড়ের কবিতা
দাঁড়ে দাঁড়ে দ্রুম
দাদা গো দাদা
দিনের হিসাব
নদী
নন্দগুপি
নাচন
নাচের বাতিক
নারদ! নারদ!
নিঃস্বার্থ
নিরুপায়
নূতন বৎসর
নোট বই
ন্যাড়া বেল তলা যায় ক’বার
পরিবেষণ
পাকাপাকি
পালোয়ান
প্যাঁচা আর প্যাঁচানি
ফস্‌‌কে গেল
বন্দনা
বর্ষ গেল বর্ষ এল
বর্ষ শেষ
বর্ষার কবিতা
বাবু
বাবুরাম সাপুড়ে
বিচার
বিজ্ঞান শিক্ষা
বিবিধ
বিষম কাণ্ড
বিষম চিন্তা
বিষম ভোজ
বুঝবার ভুল
বুঝিয়ে বলা
বুড়ীর বাড়ী
বেজায় খুশি
বেজায় রাগ
বেশ বলেছ
বোম্বাগড়ের রাজা
বড়াই
ভয় পেয়ো না
ভারি মজা
ভাল ছেলের নালিশ
ভালরে ভাল
ভুতুড়ে খেলা
মনের মতন
মন্ডা ক্লাবের কয়েকটি আমন্ত্রণপত্র
মহাভারত: আদিপর্ব
মূর্খমাছি
মেঘ
মেঘের খেয়াল
রামগরুড়ের ছানা
লক্ষ্মী
লোভী ছেলে
লড়াই-ক্ষ্যাপা
শব্দ কল্প দ্রুম্‌
শিশুর দেহ
শুনেছ কি বলে গেল
শ্রাবণে
শ্রীগোবিন্দ-কথা
শ্রীশ্রীবর্ণমালাতত্ত্ব
সঙ্গীহারা
সন্দেশ
সম্পাদকের দশা
সাধে কি বলে গাধা
সাবধান
সাহস
সৎপাত্র
হরিষে বিষাদ
হাত গণনা
হাতুড়ে
হারিয়ে পাওয়া
হিংসুটিদের গান
হিতে-বিপরীত
হুঁকোমুখো হ্যাংলা
হুলোর গান