এলে কি স্বপন-মায়া আবার আমায় গান গাওয়াতে – কাজী নজরুল ইসলাম

গজল-গান

এলে কি স্বপন-মায়া আবার আমায় গান গাওয়াতে।
নিদাঘের দগ্ধ জ্বালা করলে শীতল পুব-হাওয়াতে।।

ছিল যে পাষাণ-চাপা আমার গানের উৎস-মুখে।।
তারে আজ মুক্তি দিলে ঐ রাঙা চরণ -আঘাতে।।

এলে কি বর্ষারানী নিরশ্রু মোর নয়ন-লোকে।
বহালে আবার সুরের সুরধুনী বেদনাতে।।

এসেছ ঘূর্ণি হাওয়া হয়ত বা ভুল এক নিমিষের।
এসেছ সঙ্গে নিয়ে বজ্র ভরা ঝঞ্ঝা-রাতে।।

তবু ঐ ভুল যে প্রিয় ফুল ফুটাল শুষ্ক শাখে।
আকাশের তপ্ত নয়ন জুড়িয়ে গেল ঐ চাওয়াতে।।

তোমার ঐ সোনার হাতের সোনার চুড়ির তালে তালে
নাচে মোর গানের শিখী মনের গহন মেঘলা রাতে।।

এলে কি তারার দেশের হারিয়ে যাওয়া সুরের পরী।
শ্রান্ত এ বাণ-বেঁধা মোর গানের পাখির ঘুম ভাঙাতে।।

এলে আজ বাদলা-শেষে ইন্দ্রধনুর রঙিন মায়া।
ছোট সুর উজান স্রোতে, চোখ জুড়াল রূপ-শোভাতে।।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।