বৃথাই ওগো কেঁদে আমার কাটল যামিনী। ​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​​​ অবেলাতেই পড়ল ঝরে কোলের কামিনী – ​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ও ​​ সে শিথিল কামিনী।

 ​​​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ খেলার জীবন কাটিয়ে হেলায় ​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ দিন না যেতেই সন্ধেবেলায় ​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ মলিন হেসে চড়ল ভেলায়

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ মরণ-গামিনী।

আহা  ​​​​ একটু আগে তোমার দ্বারে কেন নামিনি। ​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ আমার ​​ অভিমানিনী।

 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ ঝরার আগে যে কুসুমে দেখেও দেখি নাই

ও যে  ​​​​ বৃথাই হাওয়ায় ছড়িয়ে গেল,​​ ছোট্ট বুকের একটু সুরভি

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ আজ তারই সেই শুকনো কাঁটা বিঁধচে বুকে ভাই –

​​ আহা  ​​​​ সেই সুরভি আকাশ কাঁদায় ব্যথায় যেন সাঁঝের পুরবি ​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ জানলে না সে ব্যথাহতা ​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ পাষাণ-হিয়ার গোপন কথা, ​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ বাজের বুকেও কত ব্যথা ​​ 

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ কত ​​ দামিনী!

 ​​​​ 

আমার  ​​​​ বুকের তলায় রইল জমা গো –

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ না-কওয়া সে অনেক দিনের অনেক কাহিনি।

​​ আহা  ​​ ​​​​ ডাক দিলি তুই যখন,​​ তখন কেন থামিনি!

 ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​ ​​​​ আমার অভিমানিনী।

দৌলতপুর, কুমিল্লা
বৈশাখ ১৩২৮

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।